পশ্চিমবঙ্গের সংক্ষিপ্ত পরিচয়

পশ্চিমবঙ্গ হল ভারতের একটি রাজ্য।ঊনবিংশ শতকের প্রথম দিকে বাংলা বলতে বাংলাদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, উড়িষ্যা, বিহার অসমকে বোঝাত। 1878 সালে অসম ও 1911 সালে বিহার ও উড়িষ্যা বাংলা থেকে আলাদা হয়ে যায়। তারপর 1947 সালের ভারত স্বাধীনতা হওয়ার পর বাংলার পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে গঠিত হয় পশ্চিমবঙ্গ। এরপর দেশীয় রাজ্য কোচবিহার 1950 সালে ও ফরাসি উপনিবেশ চন্দননগর 1954 সালে পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হয়। আবার 1956 সালে যখন ভাষার ভিত্তিতে রাজ্যের গঠন হয় তখন বিহারের পুরুলিয়া ও কিশোরগঞ্জ মহকুমা পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে যুক্ত হয়। ছিট মহল এলাকা পশ্চিমবঙ্গের আন্তর্জাতিক সীমানা বাইরে বাংলাদেশ এর সাথে ভারতের অংশ হিসেবে রয়ে গেছে।

নামাকরণ: বাংলা বা বঙ্গ নামের সঠিক উত্তর এখনো জানা যায়নি। বিভিন্ন মত অনুসারে, এই অঞ্চলে বসবাসকারী দ্রাবিড় উপজাতির ভাষা থেকে এসেছে। বঙ্গ নামটি সংস্কৃত সাহিত্যে অনেক জায়গায় রয়েছে তবে এখানকার প্রাচীন ইতিহাস সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা যায়নি। দেশ যখন স্বাধীন হয় তখন এই রাজ্যের নাম পশ্চিমবঙ্গের ছিল, তবে সরকারিভাবে ওয়েস্টবেঙ্গল প্রচলিত ছিল। 2011 সালে যখন মমতা ব্যানার্জি ক্ষমতায় আছে তখন পশ্চিমবঙ্গের নাম Paschimbanga রাখার প্রস্তাব দেয়। 2016 সালে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের নাম রাখার প্রস্তাব করা হয় বাংলা, ইংরেজিতে বেঙ্গল আর হিন্দিতে বাঙাল। কিন্তু কেন্দ্র সরকারের অনুমোদন পায়নি। আবার 2018 সালে পশ্চিমবঙ্গের নাম বাংলা হিন্দী ও ইংরেজী তে বাংলা রাখার প্রস্তাব বিধানসভায় সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়। এখন কেন্দ্র সরকারের অনুমোদন পাওয়ার অপেক্ষায়।

ভৌগোলিক অবস্থান: অক্ষাংশ পশ্চিমবঙ্গ দক্ষিনে 21° 30′ উত্তর অক্ষাংশ থেকে উত্তরে 27° 14′ উত্তর অক্ষাংশ পর্যন্ত বিস্তৃত। কর্কটক্রান্তি রেখা, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বর্ধমান এবং নদীয়া জেলার উপর দিয়ে বিস্তৃত। দ্রাঘিমাংশ পশ্চিমবঙ্গ পশ্চিমে 86° 30′ পূর্ব দ্রাঘিমা থেকে পূর্ব দিকে 89° 53′ পূর্ব দ্রাঘিমা পর্যন্ত বিস্তৃত। ক্ষেত্রফল  রাজ্যের মোট আয়তন 88,752 বর্গকিলোমিটার (34,267 বর্গমাইল)। আয়তনের দিক থেকে পশ্চিমবঙ্গ ভারতের 14 তম বড় রাজ্য, যা ভারতের মোট আয়তনের 2 % এলাকা দখল করে আছে। সীমানা পশ্চিমবঙ্গের উত্তরে আছে সিকিম রাজ্য প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভুটান, দক্ষিনে আছে বঙ্গোপসাগর, পূর্বে আছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ ও প্রতিবেশী রাজ্য অসম মেঘালয় এছাড়াও পশ্চিমে আছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র নেপাল ও প্রতিবেশী রাজ্য বিহার,উড়িষ্যা। পশ্চিমবঙ্গের সাথে সবচেয়ে বেশি সীমানা দখল করা রাজ্য হল ঝাড়খন্ড।

প্রশাসনিক বিভাগ: বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের  23  টি জেলা পাঁচটি বিভাগে বিন্যস্ত , সেগুলি হল

1.জলপাইগুড়ি বিভাগ(আলিপুরদুয়ার ,কালিম্পং ,কোচবিহার ,জলপাইগুড়ি ও দার্জিলিং জেলা)

2.মালদা বিভাগ(উত্তর দিনাজপুর ,মালদহ ,মুর্শিদাবাদ,ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা )

3.বর্ধমান বিভাগ(পূর্ব বর্ধমান , পশ্চিম বর্ধমান , বীরভূম ও হুগলী জেলা )

4.প্রেসিডেন্সি বিভাগ (উত্তর চব্বিশ পরগণা , কলকাতা , দক্ষিণ চব্বিশ পরগণা , নদিয়া ও হাওড়া জেলা)

5.মেদিনীপুর বিভাগ(পশ্চিম মেদিনীপুর,পুরুলিয়া , পূর্ব মেদিনীপুর , বাঁকুড়া ও ঝাড়গ্রাম জেলা )

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: