আদালত অবমাননার জন্য প্রশান্ত ভূষণকে ১ টাকা জরিমানা সুপ্রিম কোর্টের

ভারতের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদ এবং সুপ্রিম কোর্টের সমালোচনার জন্য দোষী সাব্যস্ত আইনজীবী তথা সমাজকর্মী প্রশান্ত ভূষণকে  শীর্ষ আদালত ১ টাকা জরিমানা করেছে। যদি সে ১৫ ই সেপ্টেম্বরের মধ্যে জরিমানা না দেয়, তবে তিনি তিন মাসের জন্য জেল ও  তিন বছর অনুশীলন নিষিদ্ধ হতে পারে।বিচারপতিরা প্রশান্ত ভূষণের “সমালোচিত পরামর্শ” উল্লেখ করে বলেছেন ,বাক-স্বাধীনতা রোধ করা যায় না। তবে তা অবাধ নয়। তবে আমরা প্রশান্ত ভূষণকে অনুতপ্ত হওয়ার অনেক সুযোগ করে দিয়েছি। হতে পারে আপনি কয়েকশো ভালো কাজ করেছো, তার মানে এই নয় যে আপনি ১০টা অপরাধ করার লাইসেন্স পেয়ে গিয়েছেন।’

প্রশান্ত ভূষণ একটি  মুদ্রা ধরে রেখে সাংবাদিকদের বলেছেন, তিনি জরিমানা আদায় করবেন কিনা বা অন্য বিকল্পের সাথে লড়াই করবেন কিনা তা তিনি পরে প্রকাশ করবেন।তিনি টুইট করেছেন , ‘আমার বন্ধু এবং সিনিয়র সতীর্থ রাজীব ধবন রায় বেরনোর সঙ্গে সঙ্গেই ১ টাকা জমা দিয়ে দিয়েছেন৷ এই রায় আমি কৃতজ্ঞ চিত্তে গ্রহণ করছি৷’

আরও পড়ুন  দৈনিক বাংলা কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

সুপ্রিম কোর্ট  উল্লেখ করেছেন, “আমরা (প্রশান্ত ভূষণ) কে দুঃখ প্রকাশ করার জন্য বেশ কয়েকটি সুযোগ ও উত্সাহ দিয়েছিলাম। তিনি দ্বিতীয় বিবৃতিতে শুধু ব্যাপক প্রচারই করেননি, চাপ দেওয়ার জন্য বিভিন্ন সাক্ষাত্কারও দিয়েছেন।বিচারপতি অরুণ মিশ্রর কাছে তাঁর আর্জি ছিল, ‘প্রশান্ত ভূষণকে সাজা দেবেন না৷’ এর পরে ভূষণকে সাজা না দেওয়ার আর্জি জানিয়ে প্রধান বিচারপতি এস এ বোবড়ে এবং বিচারপতি অরুণ মিশ্রকে খোলা চিঠি লেখেন ১২২ জন আইন পড়ুয়া৷

আরও পড়ুন  দৈনিক বাংলা কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

সুপ্রিম কোর্ট বলেছে যে “স্বাধীন বিচার বিভাগীয় কার্যক্রমে প্রভাবিত করা ছিল” বিবৃতিটি উল্লেখ করে যোগ করেছে যে মত প্রকাশের স্বাধীনতা গুরুত্বপূর্ণ হলেও অন্যের অধিকারকেও সম্মান করা উচিত।আদালত ১২ জানুয়ারী, ২০১৮-তে সুপ্রিম কোর্টের চার বিচারপতিদের দ্বারা অভূতপূর্ব সংবাদ সম্মেলনের কথাও উল্লেখ করেছিলেন, যা প্রশান্ত ভূষণ যুক্তি দিয়ে বলেছিলেন যে এমনকি বিচারকরাও তাদের সমালোচনা প্রকাশ্যে প্রকাশ করেছেন।

Facebook Comments

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *