এবার সরকারি চাকরি তুলে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার

এবার সরকারি সংস্থাগুলির নিয়ন্ত্রণ বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার বিষয়ে নীতিগর সিদ্ধান্তের ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন৷ অর্থমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারি ক্ষেত্রগুলিকে বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার পলিসি নিয়ে এলো৷  20 ট্রিলিয়ন প্যাকেজের আওতায় আত্মনির্ভর ভারত’ লক্ষ্যে পঞ্চম ও চূড়ান্ত প্রান্তে সীতারামান বলেছিলেন যে ভারত এবং বিশ্ব গত কয়েক দশকে পরিবর্তিত হয়েছে এবং দেশকে একটি সুসংগত নীতি দরকার যা বেসরকারীদের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে। পিএসইগুলি সংজ্ঞায়িত ক্ষেত্রগুলিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আরও পড়ুন  টিকটক নিষিদ্ধ করার দাবি পরেশ রাওয়ালের

সীতারামান বলেছিলেন যে সরকার শিগগিরই জনস্বার্থে কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে ন্যূনতম একটি সরকারি সংস্থা থাকবে,বাকিগুলি বেসরকারি সংস্থার হাতে দিয়ে দেওয়া হবে। এই বিশেষ ক্ষেত্রগুলির নামের তালিকা ঘোষণা করা হবে। যদিও বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে বেশিরভাগ সরকারি চাকরির আর কোনো অস্তিত্বই থাকবে না।

অপ্রয়োজনীয় প্রশাসনিক ব্যয় হ্রাস করতে কৌশলগত খাতে উদ্যোগী সংস্থাগুলি সাধারণভাবে কেবল এক থেকে চার হবে, তিনি বলেছিলেন। “অন্যদের বেসরকারীকরণ বা সংহত করা বা হোল্ডিং সংস্থাগুলির আওতায় আনা হবে।”

আরও পড়ুন  আজারবাইজানের বাকুতে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে 18তম NAM Summit 2019

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলিকে বেসরকারিকরণের পথে খুলে অর্থমন্ত্রী সাফ জানিয়েছেন, একই ক্ষেত্রে একাধিক সরকারি সংস্থা আর থাকবে না৷ কৌশলগতভাবে চিহ্নিত করা হবে৷ সরকারি ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে ৪টির বেশি কোনও সরকারি সংস্থা রাখা হবে না৷

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *