গরু একমাত্র প্রাণী যা পরিবেশে অক্সিজেন দেয়, পাশে থাকলে হাঁপানিও সারায়: উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী

উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিভেন্দ্র সিং রাওয়াত দাবি করেছেন যে গরুই একমাত্র পশু যা অক্সিজেনকে সঞ্চার করে এবং বহন করে। গরুকে মালিশ করলে যে কোনও মানুষের শ্বাসকষ্ট সেরে যেতে পারে।

বৃহস্পতিবার ইন্টারনেটে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়, যেখানে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী কে বলতে শোনা যায়‘‘গরু যেমন অক্সিজেন গ্রহণ করে, তেমনই অক্সিজেন ছাড়েও৷ আমাদের বাঁচার রসদ দেয় বলেই তাকে মায়ের স্থান দেওয়া হয়েছে৷’’ এখানেই শেষ নয়, তিনি আরও বলেন, গোটা শরীরের জন্য গোবর ও গোমূত্র খুবই উপকারী। হার্ট-কিডনির রোগ নিরাময়ে তা সাহায্য করে৷ গরুর কাছাকাছি থাকলে টিবি রোগ সেরে যায় ৷’বিজ্ঞানীরাও নাকি তাঁর এই মতবাদকে শংসাপত্রের মাধ্যমে স্বীকৃতি দিয়েছে’, বলে দাবি করেছেন তিনি৷উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনের একটি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে গিয়েছিলেন ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত।

আরও পড়ুন  নীতীশ কুমার রাজ্যের প্রথম বার্ড ফেস্টিভাল ‘কালরভ’ উদ্বোধন করলেন

তবে এই প্রথম নয়,সম্প্রতি নৈতিতালের সাংসদ অজয় ভাটও একটি বিতর্কিত মন্তব্য করেন। তিনি বলেন গড়ুর গঙ্গার জল পান করলে নাকি গর্ভবতী মায়েরা সিজারিয়ান ডেলিভারি এড়াতে পারেন এমনকি গর্ভাবস্থায় কোনও জটিলতা দেখা দিলে তাও নিরাময় করতে পারে গঙ্গার জল- এমনটাই দাবি ছিল মাত্রাতিরিক্ত গো-প্রেমে হাবুডুবু খাওয়া বিজেপি নেতা নেত্রীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন সাধ্বী প্রজ্ঞা। লোকসভা নির্বাচনের আগেই তিনি দাবি করেন, গো-মূত্র পান করলে নাকি ক্যানসার সেরে যায়। সেই মন্তব্য নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। তবে তাঁর আসনে জয়লাভ হয়েছে  তাঁর।

আরও পড়ুন  নীতীশ কুমার রাজ্যের প্রথম বার্ড ফেস্টিভাল ‘কালরভ’ উদ্বোধন করলেন

তবে মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পক্ষে মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের এক কর্মকর্তা দাবি করেন, উত্তরাখণ্ডের মানুষরা যে যে ধ্যানধারণায় বিশ্বাসী তিনি কেবলমাত্র সেই তথ্যই তুলে ধরেছেন। তাঁর আরও দাবি পাহাড়ে বসবাসকারী মানুষের ধারণা তাঁদের প্রাণ রক্ষার জন্য গরুর ভুমিকা অনেকটাই। কারণ গরুই তাঁদের অক্সিজেন সরবরাহ করে থাকে।

তথ্যসূত্র: দ্য হিন্দু

Facebook Comments

Recommended For You

About the Author: Editor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *