চরম আর্থিক সংকটে দেশ,তবু রাশিয়াকে ৭ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবেন মোদি

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শুক্রবার তার দুই দিনের রাশিয়া সফর থেকে ফিরে এসেছেন। প্রধানমন্ত্রী ২০ তম ভারত-রাশিয়া বার্ষিক শীর্ষ সম্মেলন এবং ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামের (ইইএফ) অংশ নিতে গিয়েছিলেন, যেখানে তিনি প্রধান অতিথি ছিলেন। ফোরামটি রাশিয়ার ভ্লাদিভোস্টকে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তার সফরকালে প্রধানমন্ত্রী মোদী রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে বৈঠক করেছেন। দুই দেশ প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য, শিল্প সহযোগিতা, বিনিয়োগ, সংযোগ করিডোর এবং জ্বালানি ক্ষেত্রে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

মোদি ঘোষণা করেছেন, পূর্ব রাশিয়ার উন্নয়নের জন্য আনুমানিক সাত হাজার কোটি টাকার ঋণ দেবে ভারত সরকার। পঞ্চম ইস্টার্ন ইকনমিক ফোরামে এই ঘোষণা করে মোদি বলেন, প্রাকৃতিক সম্পদ ও খনিজ সম্পদে ভরপুর এই এলাকাটি উন্নয়নের জন্য আর্থিক সাহায্য দেবে ভারত। এতে উপকৃত হবে ভারতও। এখানকার বনজ ও খনিজ সম্পদ আমদানি করে নিজের দেশে বিভিন্ন শিল্পে তা ব্যবহার করতে পারবে ভারত।
প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন , ২০২৪ সালের মধ্যে ৫ লক্ষ কোটি ডলারের অর্থনীতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চায় ভারত। কিন্তু এই বিকাশ বিকাশ শুধু ভারতকেন্দ্রিক নয়। রাশিয়ার মতো মিত্রশক্তির বিকাশও সুনিশ্চিত করতে চান তিনি। সেই কারণেই পূর্ব রাশিয়ার উন্নয়নে ঋণ দিতে চায় ভারত। পঞ্চম ইস্টার্ন ইকনমিক ফোরামে প্রধান অতিথি ছিলেন নরেন্দ্র মোদি। প্রধানমন্ত্রী পুতিনকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার সম্পর্কের টানাপোড়েন নয়াদিল্লি ও মস্কোর সম্পর্কে কোনও প্রভাব ফেলবে না। ইতিমধ্যেই দুই দেশের মধ্যে সম্পাদিত তেল, গ্যাস, প্রতিরক্ষা, মহাকাশ গবেষণা ও তথ্যপ্রযুক্তি চুক্তিগুলির কথাও উল্লেখ করেছেন নরেন্দ্র মোদি। বুধবারও বেশ কয়েকটি আর্থিক চুক্তি হয়েছে ভারত ও রাশিয়ার মধ্যে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *